1. info@businessstdiobd.top : admin :
সোমবার, ০৮ মার্চ ২০২১, ০৩:৫৫ পূর্বাহ্ন




গাড়ি কিনতে ব্যাংক লোন যেভাবে পাবেন!

পথে চলতে চলতে হয়তো মনে হয়েছে, যদি নিজের একটি গাড়ি থাকতো! গাড়ি এখন আর বিলাসিতা নয়, এটি পরিণত হয়েছে প্রয়োজনেই । একটা সময় ছিল যখন গাড়ির স্বপ্ন পূরণের জন্য করতে হতো অনেক পরিশ্রম। তারপরও কারো কারো স্বপ্ন অধরাই থেকে যেতো। এখন আর সেদিন নেই। আপনার স্বপ্ন পূরণের দায়িত্ব নিচ্ছে ব্যাংক।

সহজ শর্ত এবং সহজ কিস্তিতে পরিমিত সুদের হার এই দুই মিলেই কার-লোন এখন গ্রাহকের দ্বারপ্রান্তে। গাড়ির ঋণ পাওয়ার জন্য আপনাকে ব্যাংকের পেছনে দৌড়াতে হবে না, ব্যাংকই চলে আসবে আপনার কাছে। শুধু ব্যাংক নয় আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোও এখন গাড়ি কেনার জন্য ঋণ দিচ্ছে। নতুন-পুরাতন উভয় প্রকার গাড়ির জন্য ঋণ প্রদান করছে ব্যাংক এবং আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো। ঋণ গ্রহণে ঝামেলা না থাকায় তরুণরা বেশি আগ্রহী হয়ে উঠছেন গাড়ি ক্রয়ের ঋণের প্রতি।

ঋণের পরিমাণ: গাড়ির দামের অর্ধেক টাকা যোগান দিচ্ছে ব্যাংক। ২০১৪ সালের পূর্বে কার-লোনের অনুপাত ছিল ৭০:৩০ এখন সেই ঋণের পরিধি বৃদ্ধি করে ৫০:৫০ নিয়ে আসা হয়েছে। অর্থাৎ আগে গাড়ির দামের সর্বোচ্চ ৩০ শতাংশ পর্যন্ত ব্যাংক ঋণ দিতে পারতো। কিন্তু এখন ব্যাংকগুলো সর্বোচ্চ ৫০ শতাংশ পর্যন্ত ঋণ দিয়ে থাকে।

সুদের হার: ব্যাংক এশিয়ার অফিসার আরিফুল আলম খান বলেন, “গ্রাহকের সুবিধার্থে আমরা নতুন-পুরাতন উভয় প্রকার গাড়ির জন্যই ঋণ দিয়ে থাকি। সমান কিস্তিতে পরিশোধযোগ্য এই ঋণের সুদের হার ১২ শতাংশ ধরা হয়”।

ব্যাংক ছাড়া আর্থিক প্রতিষ্ঠান লঙ্কা বাংলা ফিন্যান্স, আইডিএলসি ফিন্যান্স গাড়ির ঋণ দিচ্ছেন। ব্যক্তি পর্যায়ে এই ঋণে সুদের হার ১১.৭৫ শতাংশ এবং প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রে ১১ শতাংশ। আইডিএলসি ফিন্যান্স লিমিটেড নতুন এবং পুরাতন উভয় গাড়ি কেনার জন্য ঋণ প্রদান করে। গাড়ির দামের সর্বোচ্চ ৭০ শতাংশ পর্যন্ত ঋণ গ্রাহকদের দিয়ে থাকে। আইডিএলসি ফিন্যান্স ১১.৫ শতাংশ থেকে ১২ শতাংশ সুদের হার ধার্য করে। শর্ত অনুযায়ী এই সুদের হার কম বেশি হতে পারে।

ইস্টার্ণ ব্যাংক ১১ শতাংশ, ডাচ্‌-বাংলা ব্যাংক ১৪ শতাংশ, ঢাকা ব্যাংক ১২ শতাংশ, ট্রাস্ট ব্যাংক ১১ শতাংশ সুদে গাড়ির ঋণ প্রদান করে। এছাড়া সোশ্যাল ইসলামি ব্যাংক, এক্সিম ব্যাংক, এমনকি ইসলামি ব্যাংকও গাড়ি কেনার জন্য ঋণ প্রদান করে। সোশ্যাল ইসলামি ব্যাংক ১৩ শতাংশ সুদের হারে গাড়ি কেনার জন্য ঋণ দিচ্ছে। সিটি ব্যাংক গ্রাহকদের ১১.৫০ শতাংশ সুদের হারে সহজ শর্তে ঋণ প্রদান করে। তবে এই ঋণ শুধু নতুন গাড়ির ক্ষেত্রে প্রযোজ্য।

কত টাকা পর্যন্ত ঋণ পাবেন: সিটি ব্যাংক গ্রাহকদের ৩ লক্ষ থেকে সর্বোচ্চ ৪০ লক্ষ পর্যন্ত এবং ব্যাংক এশিয়া গ্রাহকদের ৩ লক্ষ থেকে ৩০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত গাড়ি ঋণ দিয়ে থাকে। ট্রাস্ট ব্যাংক ২ লক্ষ থেকে ২০ লক্ষ পর্যন্ত ঋণ প্রদান করছে।

কারা ঋণ পাবেন: ব্যবসায়ী, চাকুরীজীবী, কিংবা প্রতিষ্ঠান সবাই গাড়ির ঋণ নিতে পারে। তবে এই ক্ষেত্রে মাসিক আয়ের পরিমাণটি দেখা হয়। সিটি ব্যাংক, মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক মাসিক আয় ৩০ হাজার টাকা হলেই গাড়ির ঋণ দিচ্ছে।

পরিশোধের উপায়: ৫ বছরের মধ্যে গাড়ির ঋণ পরিশোধ করতে হয়। সমান কিস্তিতে এই ঋণ পরিশোধযোগ্য।
ঋণ নেওয়ার প্রক্রিয়া: গাড়ি ঋণ পাওয়ার জন্য খুব বেশি কষ্ট করতে হবে না। গ্রাহকদের সুবিধা দিতে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো এখন নিজেরাই গাড়ি বিক্রেতা প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হচ্ছে। প্রয়োজনীয় কাগজপত্র জমার দেওয়ার ৭ দিনের মধ্যে ব্যাংক গাড়ির ঋণ মঞ্জুর করে থাকে।

ব্যাংক এখন বড় ঋণের চেয়ে ছোট ছোট ভোক্তা ঋণের প্রতি বেশি আগ্রহী হয়ে উঠেছে। কারণ, এসব ঋণ সহজে আদায় করা যায়। তাই এখন ব্যাংক এবং আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো গাড়ির ঋণের মতো প্রয়োজনীয় ছোট ছোট ঋণ প্রদানে মনযোগী হচ্ছে।

তথ্যসূত্র: প্রিয় ডটকম।




আরো পড়ুন




© All rights reserved © 2019 Business Studio
Theme Developed BY Desig Host BD